Globe Securities Ltd. | Post Details
6 Mar

শেয়ার ব্যবসা করতে চাইলে শিখে নিন টেকনিক্যাল এনালাইসিস

এনালাইসিস যার বাংলা আভিধানিক অর্থ হল বিশ্লেষন। শেয়ার মার্কেটের ক্ষেত্রে এনালাইসিস / বিশ্লেষন কি তা দেখার চেষ্টা করব।
মূলত কোন একটি বিষয় নিয়ে বিষদ বিশ্লেষন বা গবেষনাই এনালাইসিস তাহলে শেয়ার বাজারে কোন একটি কোম্পানির শেয়ার নিয়ে বিষদ বিশ্লেষণ বা গবেষনাকেই শেয়ার এনালাইসিস বলা হয়। অর্থাৎ আপনি একটি কোম্পানির শেয়ার প্রাইজ এবং কোম্পানির বর্তমান অবস্থার বিভিন্ন তথ্য বিশ্লেষন করাকেই এনালাইসিস বলে। এখানে আপনার তথ্য ভান্ডার যত বেশী সমৃদ্ধ হবে বা বেশী হবে আপনার এনালাইসিস ফলাফল তত বেশী সফল হবার সম্ভাবনা থাকে।

এবার আসি শেয়ার বাজারের ক্ষেত্রে এনালাইসিস কত প্রকার হয়ে থাকে। 

সাধারনত শেয়ার এনালাইসিস ২ ধরনের হয় যেমন ০১. ফান্ডামেন্টাল এনালাইসিস ও

০২. টেকনিক্যাল এনালাইসিস। 

তবে এখানে আরও একটি এনালাইসিস আছে তা হলো ০৩. সেন্টিমেন্টাল এনালাইসিস।

 ফান্ডামেন্টাল এনালাইসিস কি এবং টেকনিক্যাল এনালাইসিস কি তা বলার আগে বলি সেন্টিমেন্টাল এনালাইসিস টা কি ? 

মূলত এটি কোন এনালাইসিস নয়। একজন বিনিয়োগকারী  কখনই কোন কারন ছাড়া বিনিয়োগ করেন না। আসলে শুধু বিনিয়োগের ক্ষেত্রে নয় আমরা কখনই কোন কাজ কারন ছাড়া করি না। এখানে আসলে বিনিয়োগকারী  যখন কিছু না জেনে না বুঝে অন্যের কথার উপর প্রভাবিত হয়ে বা যখন নিজের ইচ্ছার মূল্যায়ন করে তখন তাকে সেন্টিমেন্টাল এনালাইসিস বলে। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই এ সকল বিনিয়োগকারী  ক্ষতির সম্মুখীন হয়।

এবার আসি ফান্ডামেন্টাল এনালাইসিস কি ?
একটি কোম্পানির বর্তমান বাস্তবিক বাজার অবস্থার র্পযালোচনাকইে ফান্ডামেন্টাল এনালাইসিস বলে। এখানে কোম্পানির বাস্তবিক বাজার অবস্থা বলতে আমি বোঝাতে চেয়েছি কোম্পানির ব্যবসার বৃদ্ধি কেমন বা কোম্পানিটি কতটাকা লাভ করতে পেরেছে ইত্যাদি ইত্যাদি। আসলে এ অবস্থাগুলো বোঝা যায় কোম্পানির আথির্ক প্রতিবেদনগুলো দেখে। তাই যখন আমরা কোন কোম্পানির আর্থিক প্রতিবেদন গুলো তথ্য বিশ্লেষন করে কোন শেয়ার নির্বাচন করব তখন তা ফান্ডামেন্টাল এনালাইসিস এর আওতাভূক্ত হবে।

সাধারণত এ এনালাইসিস ফলফল দীর্ঘমেয়দী হয়ে থাকে ও বিনিয়োগকৃত অর্থের পরিমান বেশী হয়ে থাকে এবং ঝুঁকির পরিমানও অনেক কম হয়ে থাকে । সুবিধার পাশাপাশি যে অসুবিধাগুলো আছে তা নিয়ে পরিবর্তীতে আলোচনা করব।
 যে কোন শেয়ার বাজারের ক্ষেত্রে ফান্ডামেন্টাল এনালাইসিস একটি অপরিহার্য বিষয়। 

এবার আসি টেকনিক্যাল এনালাইসিস কি ?
একটি কোম্পানির শেয়ার দর উঠানামার অর্থাৎ শেয়ার মালিকানা পাওয়ার চাহিদা ও যোগানের গানিতিক বিশ্লেষনকেই টেকনিক্যাল এনালাইসিস বলে। আরও পরিষ্কার করে বলতে গেলে আমরা জানি প্রতিটি শেয়ারের প্রাইজ/দর প্রতিদিনই উঠানামা করে অর্থাৎ এই প্রাইজ উঠানামা বিনিয়োগের আগ্রহ এবং যোগানের একটি স্বমন্বয় যেমন কেউ শেয়ার মালিকানা বিক্রি করতে চাইছে আবার কেউ ঐ শেয়ার মালিকানা ক্রয় করতে চাইছে এখানে বিনিয়োগকারীই যোগান এবং চাহিদার ভূমিকা পালন করে। তাহলে বিনিয়োগের আগ্রহ বা চাহিদার সাথে বিনিয়োগে অনাগ্রহ বা যোগানের গানিতিক বিশ্লেষনকেই টেকনিক্যাল এনালাইসিস বলে। আরও সহজ ভাষায় বলতে গেলে প্রতিদিনের প্রাইজ উঠানামার গাণিতক বিশ্লেষনকেই টেকনিক্যাল এনালাইসিস বলে।

সাধারন এ এনালাইসিস সল্প মেয়াদীর জন্য হয়ে থাকে এবং এতে ঝুঁকির পরিমান যেমন বেশী তেমনী সফল হবার সম্ভাবনাও বেশী। তবে সঠিকভাবে টেকনিক্যাল এনালাইসিস করতে পারলে আপনার ঝুঁকিও অনেক কম হবে এবং আপনার মুনাফাও অধিক হবে।
কিভাবে টেকনিক্যাল এনালাইসিস করবেন তা নিয়ে পরবর্তীতে বিষদ আলোচনা করার চেষ্টা করব কেননা টেকনিক্যাল এনালাইসিস একটি বৃহত্তর পরিসর যা শিখতে বা বুঝতে আপনাকে অধিক সময় ব্যয় করতে হবে। তবে টেকনিক্যাল এনালাইসিস সঠিক ভাবে শেখার পর আপনার শেয়ার ব্যবসায় আমূল পরিবর্তন আসবে এবং আপনি আস্থার সাথে একজন সফল ব্যবসায়ী হয়ে উঠবেন। আপনার টেকনিক্যাল এনালাইসিস শেখার ক্ষেত্রে আমরা সর্বদা আপনার পাশে আছি। একজন বিনিয়োগকারীর সফলতাই আমাদের মূল লক্ষ্য।

ক্রেডিটঃ সামিউল হক শাওন

Comments